My Blog My World

Collection of Online Publications

মধ্যপ্রাচ্যকে বুঝতে হলে …

রবার্ট ফিস্ক
যে ঘটনার ওপর ভিত্তি করে এই নিবন্ধ লিখছি, তা এখনো শেষ হয়নি। এটাই এ লেখার সবচেয়ে বড় সমস্যা। আল-কায়েদাকে বুঝতে হলে টি ই লরেন্সের সেভেন পিলারস অব উইজডম পড়তে হবে। কী পাগলামি! ওসামা বিন লাদেনের ভিডিও টেপ আমি যতবার দেখি ততবারই আমার মনে পড়ে সেভেন পিলারস অব উইজডমের আলোচিত একটি অংশ। মনে হয় সবই সংকীর্ণ চিন্তা-ভাবনা, আত্দোৎসর্গ ও নিষ্ঠুরতা। ওই অনুচ্ছেদটির ব্যাপারে আমি লরেন্সের সঙ্গে একমত পোষণ করি না। আমি তাঁর বক্তব্যের মধ্যে আরো গভীর মর্মার্থ খুঁজে পাই।
আমি এটি বলি, কারণ বছরে বেশ কয়েকবার আমার কাছে ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকার পাঠকদের কাছ থেকে অনুরোধ আসে। মধ্যপ্রাচ্যকে বুঝতে হলে ইংরেজি ভাষায় কোন কোন বই পড়া যায় তার তালিকা জানতে চান পাঠকরা। এটা আমার জন্য কঠিন। মধ্যপ্রাচ্যের ইতিহাসভিত্তিক আলোচনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো ওই ইতিহাস এখনো শেষ হয়ে যায়নি। যুদ্ধ চলছে। উভয়পক্ষ_প্রকৃত অর্থে অনেক পক্ষ সংঘাত সম্পর্কে নানাধরনের বর্ণনা দিচ্ছে। সব পক্ষের মত নিয়ে নিজের মধ্যে একটা ব্যালান্স শিট তৈরির পক্ষেও আমি নই। মধ্যপ্রাচ্য সম্পর্কে ইসরায়েলি এবং আরবীয় ধারণাও যেমন আছে, তেমনি আছে আমেরিকান ধারণাও। মধ্যপ্রাচ্য বরাবরই অন্যায়ের কথা তুলে ধরে। তাহলে সবচেয়ে ভালো তথ্য কার বইয়ে?
আরব-ইসরায়েলি দ্বন্দ্ব নিয়ে সবচেয়ে ভালো দুটি বই হতে পারে জর্জ অ্যান্টোনিয়াসের দ্য আরব অ্যাওয়েকেনিং এবং আমার বন্ধু ও সহকর্মী ডেভিড হার্স্টের দ্য গান অ্যান্ড অলিভ ব্রাঞ্চ। অ্যান্টোনিয়াস তাঁর বই লিখেছিলেন ফিলিস্তিনিরা তাদের ভূখণ্ড থেকে বিতাড়িত হওয়ার ১০ বছর আগে। হিটলারের ক্ষমতার বয়স তখন পাঁচ বছর। অ্যাওয়েকেনিং লিখেছেন, জার্মানি এবং ইউরোপের অন্য দেশগুলোতে ইহুদিরা যে নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হচ্ছে, তা পুরো সভ্যতার জন্য লজ্জার ব্যাপার। কিন্তু এর বোঝা আরব ইসরায়েলিদের ওপর চাপানো পুরো সভ্যবিশ্বের দায়িত্ববোধের ভয়াবহ স্খলন। একজনের যন্ত্রণা লাঘবের জন্য অন্য আরেকজনের ওপর যন্ত্রণার বোঝা চাপানোর পক্ষে কোনো নৈতিক যুক্তি থাকতে পারে না। জার্মানি থেকে উৎখাত হওয়া ইহুদিদের জায়গা করে দেওয়ার জন্য আরবদের নিজ ভূখণ্ড থেকে উৎখাত করা ঠিক হবে না।
অ্যান্টোনিয়াসের ওই লেখার মধ্যে সতর্কবার্তা আছে। হার্স্ট অ্যান্টোনিয়াসের সব শঙ্কাকে বিবৃতির মাধ্যমে পূর্ণতা দিয়েছেন। আমার বিশ্বাস, লিয়ন উরিসের উপন্যাস জুডাসে যে-ইহুদি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার কথা বলা আছে, অ্যান্টোনিয়াস তার জবাব দিয়েছেন। এই প্রেক্ষাপটে ইসরায়েলের নব্য ঐতিহাসিকদের ব্যাখ্যাও মনে রাখতে হবে। প্রভাবশালী ইসরায়েলি গবেষকদের মধ্যে বেনি মরিস অন্যতম। তিনি প্রমাণ করেছেন, ১৯৪৮ সালে ইসরায়েলিরা বিপুলসংখ্যক ফিলিস্তিনিকে তাদের ভূখণ্ড থেকে বিতাড়িত করেছিল।
এফ আর লেভিস একবার তাঁর একটি বাক্যে অভিযোগ তুলেছিলেন, ‘কবিতা বোঝেন এমন কোনো পাঠক বুঝতে পারবেন…।’ তাই আমি মনে করি, আমাদের বলতে হবে_মধ্যপ্রাচ্য বোঝেন এমন পাঠককে অবশ্যই অ্যাডওয়ার্ড সাঈদ পড়তে হবে। তাঁর অন্যতম সেরা বই সংগীত নিয়ে। অ্যান্টোনিয়াস যেমন রাজনৈতিকভাবে মধ্যপ্রাচ্যকে দেখেছিলেন, তিনি দেখছেন ঐতিহাসিক ও দার্শনিকভাবে। তবে অন্তত তাঁর একজন সমর্থক আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, সাঈদ ইতালি, জার্মানি ও রাশিয়ার ‘ওরিয়েন্টালিস্ট’ সাহিত্যকে খুব একটা গুরুত্ব দেননি।
লেবাননের প্রয়াত সাংবাদিক সামির কাসির তাঁর লেখায় ১০০ বছর আগের ইতিহাস তুলে ধরেছেন। পণ্ডিত অ্যাডওয়ার্ড আতিয়ার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, একজন তরুণ খ্রিস্টানের অভ্যাস ছিল নিহত লেবাননের খ্রিস্টানদের মুখে চুমু খাওয়া। প্রকৃত অর্থে সে একজন দুর্বৃত্ত ছিল। সে সময়ও মুসলমানদের শায়েস্তা করার জন্য খ্রিস্টানদের সমর্থনে সশস্ত্র গ্রুপ রাস্তায় লড়াই করত। ১৯ শতকে আমার সহকর্মী ডেভিড ম্যাককিটরিক বেলফাস্টের রাস্তায় এমন লড়াই দেখেছেন। কাসিরই প্রথম লেখক, যিনি তাঁর লেখনীতে মানুষের সুন্দর শহর নির্যাতন-নিপীড়নের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হওয়ার চিত্র তুলে ধরেন। আমি জানতাম না, হিজবুল্লাহর ওয়াজাই শহরের নামকরণ করা হয়েছে ইমাম ওয়াজাইয়ের স্মৃতিকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য। আমি এও জানতাম না যে সিরিয়ার সোস্যাল ন্যাশনালিস্ট পার্টি তার লাল, সাদা ও কালো ব্যানার ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ হয়েছে নাৎসিদের কাছ থেকেই।
লেখক : সাংবাদিক। নিবন্ধটি ব্রিটেনের ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকা থেকে নেওয়া। সংক্ষিপ্ত ভাষান্তর: মেহেদী হাসান

 

Advertisements

March 15, 2010 - Posted by | International, Political | ,

No comments yet.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: